কেসিং ওয়্যারিং ব্যাটেন ওয়্যারিং

ব্যাটেন ওয়্যারিং করার পদক্ষেপ: নিম্নে ব্যাটেন ওয়্যারিং সম্পাদনের পদক্ষেপসমূহ লিপিবদ্ধ করা হলাে।

১। যে স্থাপনায় বা বাড়িঘরে ব্যাটেন ওয়্যারিং করতে হবে সেই স্থাপনার ওয়্যারিং এর লে-আউট প্রান অনুযায়ী রঙ্গিন চক দিয়ে মিটার বাের্ড হতে সাব-সার্কিট ডিস্ট্রিবিউশন বাের্ড, ডিস্ট্রিবিউশন ফিউজ বাের্ড ও সুইচ বাের্ডের অবস্থান চিহ্নিত করে সুইচ বাের্ড হতে লােডের সিলিং রােজ পর্যন্ত লাইনের ডায়াগ্রাম দেয়াল ও ছাদে সুন্দরভাবে দাগাঙ্কিত করতে হবে।


কেসিং ওয়্যারিং ব্যাটেন ওয়্যারিং

২। প্রয়ােজনমত মালামাল, যেমন – কাঠের ব্যাটেন বা বাটাম, কর্ণার, রাউন্ড ব্লক, জয়েন্ট বক্স, সুইচবাের্ড ইত্যাদি বাছাই ও প্রস্তুত করতে হবে।

৩। কাঠের বাটেন ও অন্যান্য সামগ্রী বসানাের জন্য ডায়াগ্রাম অনুযায়ী 60 সে.মি. বা 2 ফুট অন্তর অন্তর রাওয়াল প্লাগ বসানাের জন্য দেয়ালে ছিদ্র করতে হবে।

৪। ব্যাটেনের উপর 5 সে.মি. সাইজের লিংক ক্লিপ 12 হতে 14 সে. মি. দুরে দুরে 12.7 মি. মি. (= ") তার কাটার সাহায্যে লাগাতে হবে। ৫। ছিদ্রের ভিতর রাওয়াল প্লগ বসিয়ে তার উপর দিয়ে উপযুক্ত সাইজের ব্যাটেন, জয়েন্ট বক্স, কর্ণার, রাউন্ড ব্লক, সুইচ বক্স ইত্যাদি স্কু দিয়ে সুন্দরভাবে আটকাতে হবে।


৬। এরপর ডায়াগ্রাম অনুযায়ী ব্যাটেনের উপর উপযুক্ত সাইজের ক্যাবল বসিয়ে লিংক ক্লিপের সাহায্যে সুন্দরভাবে

আটকাতে হবে।

৭। ব্যাটেনের উপরে তার বসানাে হলে ডায়াগ্রাম অনুযায়ী বিভিন্ন সরঞ্জামাদি বসিয়ে ক্যাবলের প্রান্তের সাথে সংযােগ দিতে হবে।

৮। সুইচ বাের্ডের অবস্থান মেঝে হতে 1.25 মিটার হতে 1.5 মিটার উচ্চতায় দরজার কাছাকাছি অবস্থানে বসাতে হবে।

৯। ওয়্যারিং করা শেষ হলে তা পরীক্ষা নিরীক্ষা করতে হবে।

১০। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে সঠিক বিবেচিত হলে সার্কিটে বিদ্যুৎ সরবরাহ দিতে হবে।


ব্যাটেন ওয়্যারিং এর সুবিধা:

১। ব্যাটেন ওয়্যারিং করতে খরচ কম লাগে।

২। ক্যাবল দেখা যাওয়ার কারণে ত্রুটি দেখা দিলে তা সহজেই চিহ্নিত করা যায় এবং ত্রুটিমুক্ত করা যায়।

৩। ওয়্যারিং করা সহজসাধ্য ও কম ব্যয়বহুল।

৪। পিভিসি, ভিআইআর, সিটিএস, এমএস ইত্যাদি যে কোনটির মাধ্যমে ওয়্যারিং করা যায়।

৫। ওয়্যারিং করতে খুব বেশি দক্ষ লােক প্রয়ােজন হয় না।


ব্যাটেন ওয়্যারিং এর অসুবিধা:

১। ক্যাবল উন্মুক্ত থাকে বলে যান্ত্রিক আঘাতে সহজে ক্যাবল ক্ষগ্রিস্ত হতে পারে।

২। দুর্ঘটনার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

৩। কাঠ পচনশীল অথবা পােকার আক্রমণে নষ্ট হয় বিধায় বেশি দিন টেকসই হয় না।

৪। ক্যাবল উন্মুক্ত থাকে বলে অসুন্দর দেখায়।


(Casing wiring): যে পদ্ধতিতে দেয়ালে কাঠের কেসিং বা খাঁজ কাটা চ্যাপ্টা অংশ লাগিয়ে খাজের মধ্যে ক্যাবল বসিয়ে কাঠের ঢাকনা দ্বারা আটকিয়ে ওয়্যারিং করা হয় তাকে কেসিং ওয়্যারিং বলে। এ পদ্ধতিতে 44.45 মি.মি. x 15.44 মি.মি. আকারের কাঠের কেসিং এর উপর ক্রু দিয়ে এঁটে দেয়ালে লাগানাে হয় এবং পরে ঐ কাঠের খাজে ক্যাবল বসিয়ে তার ও উপর কাঠের ঢাকনা (Cap) লাগিয়ে দেয়া হয়। কেসিং ওয়্যারিং এর ঝামেলা ও খরচ উভয়ই বেশি হয়। তাই বর্তমানে কেসিং ওয়্যারিং করা হয় না।


(Iron Clad Distribution Fuse Board)

Single pole with neutral), 15 Amp, 30 Amp, 250 Volt. () 2-way

(ii) 3 - way

(iii) 4 - way

(iv) 6 - way

(v) 8-way

(vi) 10 - way

(vii) 12 - Way turlan


(TPIN) (Triple pole Switch with Neutral) 30 Amp, 60 Amp, 100 Amp, 500 Volt. (

i) 2-way

(ii) 4 - way

(iii) 6 - way

(iv) 8-way

(v) 10 - way

(vi) 12 - way 1.


PICCO (Cut out)

(i) 15 Amp, 30 Amp, 250 Vo8lt

(ii) 15 Amp, 30 Amp, 60 Amp, 100 Amp, 300 Amp, 400 Amp 500 Volt. org a (99/)


(Switch Board One/ Two)

(i) 18 cm x 10 cm

(ii) 18 cm x 7 cm

(iii) 20 cm x 15 cm

(iv) 30 cm x 20 cm

(v) 30 cm x 20 cm

(vi) 38 cm x 30 cm

(vii) 45 cm x 30 cm

(viii) 60 cm x 30 cm

(ix) 60 cm x 45 cm

(x) 75 cm x 60 cm.


GOPUT (TE) (Joint Box, Two):

(i) 18 cm x 10 cm

(ii) 15 cm x 10 cm

(iii) 20 cm x 15 cm

(iv) 30 cm x 20 cm el 7:47/F


(Round Blook : One/ Two):

(i) 7.5 cm x 2.5 cm

(ii) 8.6 cm x 3.75 cmc

(iii) 10 cm x 3.75 cm

(iv) 12.5 cm x 3.75 cm


ব্যাটেন (Batten)

(i) 1.3 cm x 1.3 cm

(ii) 1.9 x 1.3 cm

(iii) 2.5 cm x 1.3 cm

(iv) 3.1 cm x 1.3 cm

(v) 3.8 cm x 1.3 cm

(vi) 5.1 cm x 1.3 cm


উড পিন (Wood pin)।

(i) 2.5 cm x 1.9 cm


রাওয়াল প্লগ (Rowel plug)।

7 No/ 8 No tu pils (wood Corner)

(i) 1.3 cm x 1.3 cm

(ii) 1.9 cm x 1.3 cm (iii) 2.5 cm x 1.3 cm

(iv) 3.1 cm x 1.3 cm (v) 3.8 cm x 1.3 cm

(vi) 5.1 cm x 1.3 cm


১০। সিলিং রােজ (Ceiling rose)।

(i) 2 - plate 5 Amp (Backelite)

(ii) 3 plate 5 Amp (Backelite)


(Lomp holder) : (Brass/Backelite)

(i) Pendant type


কইট স্যাডল (Conduit Saddle)

(i) 19 mm

(ii) 25.4 mm

(iii) 31.8 mm

(iv) 38.0 mm

(v) 51.0 mm


(Lock Nut)

(i) 19 mm

(ii) 25.4 mm

(iii) 31.8 mm

(iv) 38.0 mm

(v) 51.0 mms


কভুইট ফ্লেক্সিবল কাপলিংস (Conduit Flexible Couplings)।

(i) 19 mm x 19 mm

(ii) 25.4 mm x 25.4 mm

(iii) 31.8 mm x 31.8 mm

(iv) 38.0 mm x 38.0 mm

(v) 51.0 mm x 51.0 mm


(Conduit Niples)

(i) 19 mm

(ii) 25.4 mm

(iii) 31.8 mm

(iv) 38.0 mm

(v) 51.0 mm


স্টিল লিংক (Steel link)

(i) 19 mm

(ii) 25.4 mm

(iii) 31.8 mm

(iv) 38.0 mm

(v) 51.0 mm


(H.G. Bind Joint Box) 1-way,

2-way, 3-way, 4-way, (H.G. Bind joint Box 1 - way, 2-way, 3 - way, 4-way)

(i) 19 mm

(ii) 25.4 mm

(iii) 31.4 mm

(iv) 31.8 mm

(v) 38.0 mm

(iv) 51.0 mm


(I. C Box with Cover)

(i) 7.5 cm x 7.5 cm

(ii) 7.5 cm x 15 cm

(iii) 10 cm x 18 cm

(iv) 15 cm x 20 cm

(v) 20 cm x 20 cm

(vi) 20 cm x 30 cm

(vii) 25 cm x 30 cm

(viii) 30 cm x 45 cm



অভ্যন্তরীণ ওয়্যারিং স্থাপনা: নিম্নে অভ্যন্তরীণ ওয়্যারিং এ ব্যবহৃত প্রয়ােজণীয় টুলস এর তালিকা দেয়া হলাে।

(i) স্ট্যান্ডার্ড ক্রু-ড্রাইভার ।

(ii) ইনসুলেটেড কম্বিনেশন প্লয়ার্স

(iii) ইনসুলেটেড ডায়াগােনাল কাটিং প্লায়ার্স।

(iv) লং নােজ প্লায়ার্স (15.4 cm, 20.32 cm, 25.4 cm)

(v) কানেকটিং ভ্রু ড্রাইভার

(vi) ইলেকট্রিশিয়াল নাইফ

(vii) বল পিন হ্যামার (50gm, 100gm, 200gm, 500gm)

(viii) উড চিজেল।

(ix) হ্যাকস

(x) হ্যান্ড ড্রিল মেশিন।

(xi) নিওন টেস্টার

(xii) স্ট্যান্ডার্ড ওয়্যার গেজ (S.W.G)

(xiii) ইলেকট্রিক সােল্ডারিং আয়রন

(xiv) মেজারিং টেপ।

(xv) অ্যাডজাস্টেবল রেঞ্চ

(xvi) পাইপ রেঞ্চ

(xvii) অ্যালেন রেঞ্চ

(xviii) রাওয়েল প্লাগ

(xix) প্লাম্ব বব

(xx) পাইপ ভাইস।

(xi) ডাই এন্ড স্টক

(xxii) র্যাচেট বিট

(xxiii) মেজারিং স্কেল

xxiv) কভুইট পাইপ কাটার

(xXv) কভুইট বেন্ডিং টুলস। |

(a) হিকিস (Hickegs)

(b) বেন্ডিং র্যাকস

(c) প্রেসার ব্লেন্ডার

(d) রােলার ব্লেন্ডার ।


মেইন সার্কিট ও সাব সার্কিটের ললাডের হিসাবকরণ: কোন বৈদ্যুতিক স্থাপনার সকল লােডের যােগফলকে মেইন সার্কিটের লােড বলে। একটি সাব সার্কিটের নির্দিষ্ট সীমার লােড যুক্ত থাকতে পারে তাই নিয়ম ও সুবিধা অনুযায়ী মেইন সার্কিটের মােট লােডকে ভাগ করে আলাদা আলাদা সাব সার্কিটে যুক্ত করতে হবে। বৈদ্যুতিক স্থাপনার মােট লােডকে দুইভাগে ভাগ করা যায়। যথা :


১। লাইটিং লােড : লাইট, ফ্যান ও 2 পিন সকেটকে লাইটিং লােড হিসেবে গণ্য করা হয়। সাধারণত ইনক্যান্ডিসেন্ট ল্যাম্প 60 ওয়াট, 100 ওয়াট সিএফএল ল্যাম্পের জন্য 7 ওয়্যাট হতে 60 ওয়্যাট, 56" সিলিং ফ্যানের জন্য 80 ওয়াট, 40" টিউব লাইটের জন্য 40 ওয়াট এবং 2 পিন সকেটের জন্য 60 ওয়াট বা 100 ওয়াট পাওয়ার বিবেচনা করা হয়। হিসাবকৃত মােট পাওয়ারকে সরবরাহকৃত ভােল্টেজ দ্বারা ভাগ করে মােট কারেন্ট হিসেব করা হয়।

বর্তনীর মােট কারেন্ট = বর্তনীর মােট পাওয়ার / সরবরাহ ভােল্টেজ


বর্তনীর মােট কারেন্টের উপর ভিত্তি করে কারেন্ট বহনের উপযােগী তারের সাইজ নির্ণয় করা হয়। প্রতিটি লাইটিং সাব সার্কিটের সর্বোচ্চ পাওয়ার 800 ওয়াট ধরা হয়। মেইন সার্কিটের মােট সােডকে ৪০০ দ্বারা ভাগ করে সাব সার্কিটের সংখ্যা নির্ণয় করা হয়। ভাগফল পূর্ণ সংখ্যা হলে ততটি এবং ভগ্নাংশের জন্য আরাে একটি সাব সার্কিটে সর্বোচ্চ 10 টি পয়েন্ট এবং 800 ওয়াটের বেশি লােড ব্যবহার করা যাবে না ।


২। পাওয়ার লােড হিটার, ইলেকট্রিক ওভেন, মাইক্রোওভেন, রাইস কুকার, কারি কুকার, রেফ্রিজারেটর, 3-পিন সকেট ইত্যাদি লােডকে পাওয়ার লােড বলে। পাওয়ার সার্কিটের প্রথমে পয়েন্ট হিসাব করতে হয় তারপর মােট লােড হিসাব করতে হয়। প্রতিটি পাওয়ার সাৰ সর্কিটে সর্বাধিক 2 টি পয়েন্ট থাকে আর লােড হিসাবে সর্বোচ্চ 3000 ওয়াট লােড যুক্ত থাকে। মেইন সার্কিটের মােট লােডকে সরবরাহ ভােল্টেজ দ্বারা ভাগ করে মেইন সার্কিটের মােট কারেন্ট নির্ণয় করতে হয়। মেইন

পাওয়ার সার্কিটের মােট কারেন্ট = মােট লােড/ সরবরাহ ভােল্টেজ


মেইন সুইচের আকার (Size) নির্বাচন : মেইন সার্কিটের কারেন্ট নির্ণয়ের পর তার উপর ভিত্তি করে মেইন সুইচের ক্ষমতা নির্ণয় করা হয়। মেইন সুইচের ক্ষমতা। নির্ণয় করার জন্য মেইন সার্কিটে প্রবাহিত কারেন্টের 1.5 গুন কারেন্ট বহন ক্ষমতা বিবেচনা করা হয়। যেমন- বাড়িটির মেইন সার্কিটের কারেন্ট = 28.04 অ্যাম্পিয়ার সুতরাং মেইন সুইচের কারেন্ট বহন ক্ষমতা = 28.04 × 1.5 = 42.06 অ্যাম্পিয়ার মেইন সুইচ হিসেবে 250 ভােল্ট 60 অ্যাম্পিয়ার রেটিং এর আয়রন ক্ল্যাড সুইচ ব্যবহার করা হয়। (গ) সাৰ মেইন সুইচের আকার : আলােচ্য বাড়িতে 4 টি লাইটিং সাব সার্কিট এবং 2টি পাওয়ার সাব সার্কিট আছে।


লাইটিং সাব সার্কিটগুলাের কারেন্ট প্রবাহ 1, 2, 3 ও 4 নং এর কারেন্ট প্রবাহ যথাক্রমে 1.70 অ্যাম্পিয়ার 1.22 অ্যাম্পিয়ার, 2.04 অ্যাম্পিয়ার, 1.35 অ্যাম্পিয়ার। যাদেরকে 1.5 দ্বারা গুণ করলে 2.55 অ্যাম্পিয়ার 1.83 অ্যাম্পিয়ার, 3.06 অ্যাম্পিয়ার, এবং 2.025 অ্যাম্পিয়ার পাওয়া যায়। এ সকল ক্ষেত্রে মেইন সুইচের স্থলে প্রতি সাব সার্কিট 250 volt, 5 A রেটিং এর সার্কিট ব্রেকার ব্যবহার করা যেতে পারে। পাওয়ার সাব সার্কিটে প্রবাহিত কারেন্ট 4.70 অ্যাম্পিয়ার ও 13.04 অ্যাম্পিয়ার 1.5 দ্বারা গুণ করে প্রাপ্ত কারেন্ট 13.05 অ্যাম্পিয়ার ও 19.575 অ্যাম্পিয়ার কারেন্ট পাওয়া যায়। সুতরাং পাওয়ার সাব সার্কিটে 250 Volt 15 অ্যাম্পিয়ার এবং 250 Volt 30 অ্যাম্পিয়ার আকারের আয়রন ক্ল্যাড মেইন সুইচ অথবা 15A, 250V এবং 25 A, 250V আকারের সার্কিট ব্রেকার ব্যবহার করা হয়।


সুইচের আকার নির্বাচন: প্রতিটি লাইটিং লােড নিয়ন্ত্রণের জন্য 250 ভােল্টে 1 অ্যাম্পিয়ার আকারের টাম্বলার সুইচ অথবা একই গ্রেডের পিয়ানাে সুইচ ব্যবহার করা হয়। পাওয়ার লােড পরিচালনার জন্য প্রতি পয়েন্টের লােড ও কারেন্ট হিসাব করে 5A, 10A অথবা 15A, 250V গ্রেডের সুইচ ব্যবহার করা হয়।


অভ্যন্তরীণ ওয়্যারিং স্থাপনের জন্য প্রয়ােজনীয় দ্রব্য সামগ্রী এবং শ্রমিকের জন্য বিস্তারিত প্রাক্কলন তৈরি করা (Prepare a Defail Estimate for Necessary Materials and Labor of Installation of Internal Wiring) মনে করি, একটি একতলা বাড়িতে কনসিল্ড ক্যুইট ওয়্যারিং করা হয়েছে। নিচের চিত্রে বাড়িটির বৈদ্যতিক পয়েন্ট দেখিয়ে লে-আউট প্লন দেখানাে হয়েছে। কভুইট লে-আউট, সুইচ বাের্ড, মেইন সুইচবাের্ড ও ডিস্ট্রিবিউশন বাের্ড চিহ্নিত করে সম্পূর্ণ। বিদ্যুতায়নের জন্য মালামালের তালিকাসহ প্রাক্কলন তৈরি করতে হবে।


পয়েন্ট মেথডে এস্টিমেট প্রস্তুতকরণ (Prepare an Estimate by point Method) পয়েন্ট মেথডে এস্টিমেট প্রস্তুত করার সময় বৈদ্যুতিক স্থাপনায় ব্যবহৃত পয়েন্টগুলােকে তাদের ধরন অনুসারে ভাগ করে নিতে হয়। এরপর প্রত্যেক প্রকারের পয়েন্টগুলাের ওয়্যারিং এর জন্য প্রত্যেক পয়েন্টের জন্য প্রয়ােজনীয় তার, সুইচ হােল্ডার, সিলিং রােজ, চ্যানেল বা কভুইট, সকেট আউলেট, ফ্লু, পেরেক, স্যাডল, রাওয়েল প্লাগ ইত্যাদি পরিমাণ ও তাদের মূল্য হিসাব করা হয়।


একটি পয়েন্ট স্থাপন ও সংযােগ দিতে শ্রম ব্যয় নির্ধারণ করে একই ধরনের পয়েন্টের সংখ্যার সাথে গুণ করলে ঐ ধরনের পয়েন্টগুলাের আনুমানিক খরচ পাওয়া যায়। এভাবে প্রত্যেক প্রকারের পয়েন্টের জন্য আলাদাভাবে খরচ বের করে অন্যান্য উপকরণ যেমন – বাতি, পাখা ইত্যাদির মূল্য এর সাথে যােগ করলে সমগ্র স্থাপনার ব্যয়ের প্রাক্কলন পাওয়া যায়।


এর সঙ্গে আনুষাঙ্গিক বা বিবিধ খরচ বাবদ মােট ব্যয়ের 10% অতিরিক্ত যােগ করে মােট খরচ নির্ণয় করা হয়। এ পদ্ধতিতে নির্ভুল বা সঠিক প্রাক্কলন করা সম্ভব হয় না। তবে কাছাকাছি মান পাওয়া যায়। এ পদ্ধতিতে মালামালের অপচয় হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে পয়েন্ট মেথডে এস্টিমেট করা কম সময়সাপেক্ষ ও শ্রমসাধ্য।

*

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post